ঈদ উল আজহার জামাতও মসজিদে

করোনাভাইরাসের বিস্তার রোধে ঈদ উল ফিতরের মতো ঈদ উল আজহার জামাতও মসজিদে পড়তে হবে। এক্ষেত্রে মানতে হবে স্বাস্থ্যবিধি এবং করা যাবে না কোলাকুলি। রোববার দুপুরে এক আন্তঃমন্ত্রণালয় ভার্চুয়াল সভায় এই সিদ্ধান্ত হয় বলে ধর্ম মন্ত্রণালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তি জানানো হয়। করোনা ভাইরাস সংক্রমণজনিত কারণে জনস্বাস্থ্য বিবেচনায় আসন্ন পবিত্র ঈদ উল আজহার নামাজের জামাত ঈদগাহ বা উন্মুক্ত স্থানের পরিবর্তে নিকটস্থ মসজিদে আদায়ের জন্য সবাইকে অনুরোধ করা হয়েছে।

ধর্ম মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র তথ্য ও জনসংযোগ কর্মকর্তা আনোয়ার হোসাইন বলেন, সবাইকে বাসা থেকে ওজু করে মসজিদে যেতে হবে মাস্ক পরে। কাতারে দাঁড়াতে হবে দূরত্ব রেখে। নামাজ শেষে কোলাকুলি বা হাত মেলানো যাবে না। এসব স্বাস্থ্যবিধি সবাইকে মানতে হবে।

ঈদ উল আজহার প্রধান জামাত জাতীয় ঈদগাহ এর পরিবর্তে জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররমে অনুষ্ঠিত হবে বলে সভায় জানানো হয়। চাঁদ দেখা সাপেক্ষে এ বছর ৩১ জুলাই বা ১ অগাস্ট ঈদ উল আজহা হওয়ার কথা রয়েছে।

ইসলামিক ফাউন্ডেশনের মহাপরিচালক মো. আনিছুর রহমানের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত সভায় মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়, স্বরাষ্ট্র, স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ, স্থানীয় সরকার,পল্লী উন্নয়ন ও সমবায়, তথ্য, জনপ্রশাসন, মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়, ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন, ইসলামিক ফাউন্ডেশনসহ বিভিন্ন মন্ত্রণালয়, বিভাগ, দপ্তর সংস্থার প্রতিনিধিরা সভায় অংশ নেন। সভায় দেশের শীর্ষস্থানীয় ওলামারা দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে এ ভার্চুয়াল সভায় অংশ নিয়ে তাদের মতামত দেন।