অ্যাটর্নি জেনারেলের দায়িত্বে মৌলভীবাজারের আমিন উদ্দিন

দেশ ডেস্ক :: সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সভাপতি এ এম আমিন উদ্দিন অ্যাটর্নি জেনারেল পদে নিয়োগ পেয়েছেন। রাষ্ট্রপতি মো. আব্দুল হামিদ জ্যেষ্ঠ এই আইনজীবীকে সরকারের প্রধান আইন কর্মকর্তা অ্যাটর্নি জেনারেল হিসেবে নিয়োগ দেন।

মাহবুবে আলমের মৃত্যুতে রাষ্ট্রের সর্বোচ্চ আইন কর্মকর্তার পদটি শূন্য হয়েছিল। সেই স্থানে আসা আমিন উদ্দিন তিন দশক ধরে সর্বোচ্চ আদালতে আইনজীবী হিসেবে কাজ করে আসছেন। এক সময় ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেলের দায়িত্বও পালন করেছিলেন তিনি। আইন মন্ত্রণালয় থেকে বৃহস্পতিবার আমিন উদ্দিনকে নিয়োগের প্রজ্ঞাপন হয়। এ এম আমিন উদ্দিন বাংলাদেশের ১৬তম অ্যাটর্নি জেনারেল হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন।

মৌলভীবাজারের কুলাউড়ার সন্তান আমিন উদ্দিনের জন্ম ১৯৬৩ সালের ১ অক্টোবর। ঢাকা সিটি কলেজ এইচএসসি পাস করেন তিনি। এরপর ঢাকা কলেজ থেকে স্নাতক ডিগ্রি নেওয়ার পর সেন্ট্রাল ল কলেজ থেকে ১৯৮২ সালে তিনি এলএলবি করেন। ১৯৮৭ সালে আইনজীবী হিসেবে তালিকাভুক্ত হন আমিন উদ্দিন। ১৯৮৯ সালের ২৮ অক্টোবর তিনি সুপ্রিম কোর্টের হাই কোর্ট বিভাগে এবং ২০০৩ সালে আপিল বিভাগে আইনজীবী হিসেবে তালিকাভূক্ত হন। ২০১৫ সালে সুপ্রিম কোর্টের জ্যেষ্ঠ আইনজীবী হিসেবে নিয়োগ পান আমিন উদ্দিন।

আমিন উদ্দিন ২০১৯-২০২০ মেয়াদে সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সভাপতি ছিলেন। এবার পুনর্র্নিবাচিত হয়ে দ্বিতীয় মেয়াদে দায়িত্ব পালন করছেন। তার আগে তিনি সমিতির সম্পাদকও নির্বাচিত হয়েছিলেন। ২০০০ থেকে ২০০১ সালের অক্টোবর পর্যন্ত তিনি ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। তার আগে চার বছর তিনি ছিলেন সহকারী অ্যাটর্নি জেনারেল।

আমিন উদ্দিনের নেতৃত্বে অ্যাটর্নি জেনারেলের কার্যালয়ে এখন তিনজন অতিরিক্ত অ্যাটর্নি জেনারেল রয়েছেন। তারা হলেন মুরাদ রেজা, এম এম মুনীর ও মো. মোমতাজ উদ্দিন ফকির। অ্যাটর্নি জেনারেলের কার্যালয়ে মোট আইন কর্মকর্তার সংখ্যা এখন ২২৬ জন। এর মধ্যে ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল রয়েছেন ৬৭ জন। আর সহকারী অ্যাটর্নি জেনারেল রয়েছেন ১৫৫ জন।

গত ২৭ সেপ্টেম্বর অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেলে তার পদটি শূন্য হয়। দেশের বিচার বিভাগের ইতিহাসে দীর্ঘ সময় ধরে রাষ্ট্রের প্রধান আইন কর্মকর্তা হিসেবে অ্যাটর্নি জেনারেল পদে নিযুক্ত ছিলেন মাহবুবে আলম।

এএসআর/০০৭